ইমেইল মার্কেটিং কি? কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করবেন?

ইমেইল মার্কেটিং কি?

স্যোশাল মিডিয়া মার্কেটিং কিংবা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মতো ইমেইল মার্কেটিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি অংশ। তবে অন্যান্য মার্কেটিং এর থেকে ইমেইল মার্কেটিং এর পদ্ধতি সম্পূর্ণ আলাদা। অনলাইনে বিভিন্ন তথ্য আদান-প্রদান করার জন্য একটি মেইল অ্যাড্রেস এর প্রয়োজন হয়। আর এই মেইল অ্যাড্রেস এর ঠিকানাই হলো মূলত ইমেইল বা ইমেইল অ্যাড্রেস। আর এই ইমেইল অ্যাড্রেসকে দিয়ে বিভিন্ন কোম্পানি, সংস্থা, প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসা বানিজ্য বা বিভিন্ন পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার ও প্রসার বাড়াতে ব্যবহার করে। এই ইমেইল অ্যাড্রেস দিয়ে বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান একত্রে অনেক জনের কাছে মেইল পাঠায়। আর এই মেইল অ্যাড্রেস ব্যবহার করে যে মার্কেটিং করা হয় এটাকেই মূলত ইমেইল মার্কেটিং বলা হয়।

ইমেইল মার্কেটিং এর উদ্দেশ্য

বর্তমান সময়ে ইমেইল মার্কেটিং করার মাধ্যমে ভালো টাকা আয় করা যায়। ইমেইল মার্কেটিং যেমন সহজ ঠিক তেমনি সঠিক ভাবে করতে পারলে প্রচুর টাকাও আয় করা যায়। ইমেইল মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে নির্ভরযোগ্য গ্রাহকদের মেইল পেতে হবে। সেসব গ্রাহকদের কাছে আপনার অথবা ইমেইল অ্যাড্রেস বিক্রি করে তাদের কাছে মেইলের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা প্রসার করতে পারবেন। আপনি যেমন নিজের পণ্য বা সার্ভিস ইমেইল মার্কেটিং করে প্রচার প্রসার বা বিক্রি করতে পারবেন। ঠিক তেমনি করে চাইলে আপনার গ্রাহকদের মেইল অ্যাড্রেসগুলো কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান অথবা সংস্থার কাছে বিক্রি করতে পারবেন। এর ফলে আপনার যেমন আয় হবে তেমনি কোম্পানি বা সংস্থাগুলো আপনার কাছে থেকে মেইলগুলো কিনে নিয়ে তাদের পণ্য বা সার্ভিস প্রচার বা বিক্রি করতে পারবে।

ইমেইল মার্কেটিং করার নিয়ম

যেকোনো পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা প্রসার করার জন্য ইমেইল মার্কেটিং করে গ্রাহকদের জানানো হয়। ইমেইল মার্কেটিং করার নিয়ম হলো দুই রকমের টুলস ব্যবহার করে ইমেইল মার্কেটিং করা একটি হলো ফ্রী টুলস আরেকটি হলো পেইড টুলস। কারণ আপনি চাইলেও খুব সহজে Gmail অথবা Yahoo এর মাধ্যমে এক সাথে হাজার হাজার গ্রাহকদের মেইল পাঠাতে পারবেন না। যদি ও কখনো এক সাথে অনেকগুলো মেইল পাঠান তাহলে আপনার মেইল অ্যাকাউন্ট স্পাম হিসেবে ধরে আপনার অ্যাকাউন্ট ডিজেবল করে দিতে পারে। যে কারনে কয়েকটি ফ্রী বা পেইড টুলস ব্যবহার করে ইমেইল মার্কেটিং বা এক সাথে অনেক গ্রাহকদের মেইল পাঠাতে পারবেন। এই ইমেইল মার্কেটিং টুলস গুলোর মধ্যে সবচেয়ে সেরা কয়েকটি হলো:

  • মেইলচিম্প
  • মেইলার লাইট
  • সেন্ডার
  • হাব স্পট
  • সেন্ড ইন ব্লু
  • অমনি সেন্ড
  • সেন্ড প্লাস
  • বেঞ্চমার্ক

এই ইমেইল মার্কেটিং টুলসগুলো ব্যবহার করে একটি ইমেইল অ্যাড্রেস থেকে হাজার হাজার ইমেইলে আপনার পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা অফার পাঠাতে পারবেন। এছাড়াও এই ফ্রি টুলসগুলো সম্পর্কে আরো জানতে ইউটিউব অথবা গুগল করতে পারেন। 

ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য কিছু জনপ্রিয় টুলস ও ওয়েবসাইট

ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে আপনার কয়েকটি টুলস ও ওয়েবসাইট এর প্রয়োজন আছে। মেইল অ্যাড্রেস কালেকশন থেকে শুরু করে সেই মেইল গুলোকে বিক্রি করা এরপরে সেই মেইল গুলোতে নির্দিষ্ট পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা অফারের জন্য পাঠাতে ও কিছু টুলস এর প্রয়োজন আছে। যেমন:

  • মেইল কালেকশন টুলস
  • সফটওয়্যার টুলস
  • মার্কেটপ্লেস

আপাতত এগুলোই সবচেয়ে প্রয়োজনীয় টুলস। এই টুলসগুলোর কাজ আলাদা আলাদা। আর আসল কথা হলো ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে অবশ্যই এই টুলসগুলো লাগবে। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক যে কোন টুলস কি কি কাজে ব্যবহার করতে হবে?

মেইল কালেকশন টুলস

অনেকে শুরুতে ইমেইল মার্কেটিং করতে গিয়ে একা একাই ইমেইল কালেকশন করে। তবে সবচেয়ে মজার বিষয় হলো যে, বর্তমানে অনেক গুলো ফ্রী টুলস আছে যেগুলোর মাধ্যমে সহজেই মেইল অ্যাড্রেস কালেকশন করা যায়। তবে যেহেতু এগুলো ফ্রী টুলস সে কারণে অনেকেই একই মেইল একজনের কাছে বিক্রি করে। সে কারণে যে আগে মেইল গুলো কালেকশন করে মার্কেটিং করে তারই লাভ হয়। তবে সমস্যা নেই একই কোম্পানির কাছে মেইল বিক্রি না করলে তেমন সমস্যা হয় না। ফ্রীতে ইমেইল কালেকশন করার কয়েকটি জনপ্রিয় ফ্রী টুলস হলো:

  • ব্লুম (Bloom)
  • সুমো মি (Sumo Me)
  • অপ্টিন মনস্টার (Optin Monstar)
  • স্লিক নোট (Sleek Note)
  • গ্রাভিটি ফর্ম (Gravity Form)

এই ফ্রি অনলাইন টুলস গুলো দিয়ে চাইলে যতো ইচ্ছে ততোগুলো মেইল কালেকশন করতে পারবেন। এছাড়াও যদি আপনার কোন ওয়েবসাইট থাকে তাহলে সেখানে কমেন্ট করলে সেই মেইল গুলো ও সাবস্ক্রাইব বাটন দিয়ে ও মেইল কালেকশন করতে পারবেন। আর যদি ওয়েবসাইট না থাকে তাহলে এই টুলসগুলো থেকে ও মেইল কালেকশন করতে পারবেন।

সফটওয়্যার টুলস

বিভিন্ন কোম্পানির পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা অফারের জন্য জিমেইল (Gmail) অথবা আউটলুক (Outlook) এর মাধ্যমে এক সাথে হাজার হাজার মেইলে কোম্পানির প্রচার বা অফারের মেইল পাঠাতে পারবেন না। আর যদিও পাঠান আপনার মেইল অ্যাড্রেস ব্যান হয়ে যাবে। পরবর্তীতে সব মেইল স্পাম হয়ে যাবে। যে কারনে এক সাথে অনেক গুলো মেইলে মেইল কয়েকটি ফ্রী বা পেইড টুলস ব্যবহার করতে হবে। এই ইমেইল মার্কেটিং ফ্রি টুলস গুলোর মধ্যে সবচেয়ে সেরা কয়েকটি হলো:

  • মেইলচিম্প (Maip Chimp)
  • মেইল জিনিয়াস (Mail Genius)
  • লিটমাস (Litmus)
  • রিচ মেইল (Reach Mail)
  • টার্গেট হিরো (Target Hero)
  • ড্রীপ (Drip)
  • ম্যাড মিমি (Mad Mimi)
  • কেক মেইল (Cake Mail)
  • মেইল জেট (Mailjet)
  • বেঞ্চমার্ক (Benchmark)

এই টুলস গুলো ইমেইল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে খুব প্রয়োজনীয় টুলস। এছাড়াও এই টুলস গুলো দিয়ে মেইল অ্যাড্রেস কালেকশন ও করা যায়। যা ইমেইল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে খুব প্রয়োজন।

মার্কেটপ্লেস

ইমেইল করে মার্কেটিং করার জন্য বর্তমানে সবচেয়ে সেরা কয়েকটি মার্কেটপ্লেস আছে। যেগুলোর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি আপনার কাছে থাকা মেইল অ্যাড্রেসগুলো বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারবেন।ইমেইল মার্কেটিং এর অনেক গুলো অনলাইন মার্কেটপ্লেস রয়েছে। যেখানে আপনি খুব সহজেই যেকোনো ইমেইল মার্কেটিং এর কাজ পাবেন। ইমেইল মার্কেটিং এর কয়েকটি জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোর মধ্যে অন্যতম কয়েকটি হলো;

আপওয়ার্ক (Upwork)

ফ্রিল্যান্সার (Freelancer)

ফাইবার (Fiverr)

বর্তমান সময়ে ইমেইল মার্কেটিং এর চাহিদা অনলাইনের এই মার্কেটপ্লেসগুলো সবচেয়ে সেরা। এখানে যে কোনো ইমেইল মার্কেটিং কাজ ছাড়া আরো অনেক ধরনের কাজ খুব সহজেই পাওয়া যায়। বর্তমানে খুব সহজেই এই মার্কেটপ্লেসগুলোতে ইমেইল মার্কেটিং এর কাজ করে মাসে হাজার টাকা আয় করা যায়। আর সবচেয়ে মজার বিষয় হলো যে এই মার্কেটপ্লেস গুলোতে প্রচুর পরিমানে ইমেইল মার্কেটিং এর কাজ পাবেন।

ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করুন

ইমেইল মার্কেটিং করে কয়েকটি উপায়ে আয় করা যায়। এরমধ্যে সবচেয়ে লাভজনক কয়েকটি মাধ্যম আছে যেগুলোতে ইমেইল মার্কেটিং করলে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। তাছাড়া এই পদ্ধতিতে ইমেইল মার্কেটিং করা খুবই সহজ। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি লাভজনক ও জনপ্রিয় কয়েকটি ইমেইল মার্কেটিং থেকে আয় করার উপায়ের মধ্যে সবচেয়ে সেরা হলো;

অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম (Affiliate Program)

ইমেইল সেল (Email sell)

সার্ভিস অফার (Service Offer)

অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম (Affiliate Program)

বিভিন্ন অনলাইন স্টোর আছে যারা তাদের পণ্য বিক্রি করে দিলে একটা অংশ কমিশন হিসেবে প্রদান করে। আপনি তাদের অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যোগ দিয়ে ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে যেকোনো পণ্য বা সার্ভিস এর প্রমোট করে টাকা আয় করতে পারবেন। আপনার কাছে থাকা মেইলে বিভিন্ন পণ্য বা সার্ভিস এর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামের লিংক শেয়ার করে কমিশন বা টাকা আয় করতে পারবেন।

ইমেইল সেল (Email sell)

আপনার কাছে যতোগুলো মেইল অ্যাড্রেস কালেকশন করা আছে সেগুলো বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান এর কাছে বিক্রি করতে পারেন। তারা আপনার কাছে থেকে মেইল অ্যাড্রেস নিয়ে তাদের পণ্য বা সার্ভিস এর প্রচার বা প্রসার করে থাকে। এর মাধ্যমে তারা আপনাকে প্রতিটি মেইলের জন্য টাকা পে করবে। আর ইমেইল মার্কেটিং এর ক্লায়েন্ট খোঁজার জন্য আপওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার এর মত মার্কেটপ্লেস গুলোতে ঢু মারতে পারেন। এই অনলাইন মার্কেটপ্লেসে অনেক ইমেইল মার্কেটিং এর কাজ পাওয়া যায়।

সার্ভিস অফার (Service Offer)

কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান তাদের যেকোনো ধরনের পন্য বা সার্ভিস তাদের বিভিন্ন গ্রাহকদের কাছে পৌঁছাতে তাদের মেইলে ইমেইল মার্কেটিং করে থাকে। এর মাধ্যমে ইমেইল মার্কেটিং দ্বারা গ্রাহকেরা বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের পন্য বা সার্ভিস এর অফার সম্পর্কে জানতে পারে। যাতে গ্রাহকেরা এই পণ্য বা সার্ভিস এর অফার গুলো ক্রয় করে। এভাবে সার্ভিস অফার এর মাধ্যমে ইমেইল মার্কেটিং করে টাকা আয় করা যায়।

আরো পড়ুন :

আমাদের শেষ কথা

ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে টাকা করতে যা যা করতে প্রয়োজন তার সবই আলোচনা করেছি। এরপরেও যদি ইমেইল মার্কেটিং সম্পর্কে আরো তথ্য জানতে চান অথবা এই আর্টিকেলটির কোথাও ইমেইল মার্কেটিং নিয়ে কোন কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আপনার সমস্যাটি সমাধান করে দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।

তো আজ এই পর্যন্তই ছিলো ইমেইল মার্কেটিং থেকে যেভাবে আয় করবেন তার সব বিস্তারিত আলোচনা।

ইমেইল মার্কেটিং


Post a Comment