ফটো এডিটিং এর সেরা বিশটি ওয়েবসাইট

গ্রাফিক্স ডিজাইনের ইতিহাস হাজার বছরের পুরোনো, প্রাচীন কালে মানুষ গুহায় চিত্রাঙ্কন করতো, এরপর মানুষ যখন সভ্যতার ছোঁয়া পেল তখন ক্যানভাসে রংতুলি ব্যবহার করে চিত্রাঙ্কন শুরু করলো। বর্তমান যুগে এসে মানুষ তাদের ছোট্ট মোবাইল দিয়েই চিত্র ধারণ করতে পারে এবং নিজের বুদ্ধিমত্তা প্রয়োগ করে নিত্যনতুন ডিজাইনের ছবি তৈরি করে।

আমরা প্রায় সবাই ছবি তুলি এবং তার সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য এডিট করি। আবার বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের নানা রকম গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করা প্রয়োজন হয় যেমন : ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লোগো, বিজ্ঞাপনের পোষ্টার, ক্যালেন্ডার, শুভেচ্ছা কার্ড, ব্লগ ব্যানার, থাম্বনাইল ইত্যাদি তৈরি করতে হয়। এসব তৈরি করার জন্য গুগল প্লে স্টোর ও অ্যাপস স্টোরে নানা রকম অ্যাপস পাওয়া যায়, কিন্তু এসব অ্যাপস ভারী হ‌ওয়ায় মোবাইলের অনেক স্টোরেজ ব্যবহার করতে হয়, ফলে মোবাইলের গতি ধীর হয়ে পড়ে। কিন্তু যদি অনলাইনে এ সব ফটো এডিটিং করা যায় তাহলে কোন অ্যাপস ইনস্টল করা প্রয়োজন নেই। তাই এই লেখায় আমি ফটো এডিটিং করার জন্য বিশটি ওয়েবসাইটের নাম উল্লেখ করব, যেগুলো ফটো এডিটরদের জন্য বিশেষ কার্যকরী এবং এর ব্যবহার সম্পূর্ণ ফ্রী।


Canva

ক্যানভা অন্যতম জনপ্রিয় একটি ফটো এডিটিং ওয়েবসাইট। এটি ব্যবহার করে খুব সহজেই আকর্ষণীয় ছবি তৈরি করা যায়, কারণ এখানে প্রতিটা কাজের জন্য অসংখ্য টেমপ্লেট ও প্রয়োজনীয় সব ধরনের ইলিমেন্ট পাওয়া যায়। তবে আপনি যতো বেশি ক্রিয়েটিভ হবেন আপনার ডিজাইন ততো বেশি সুন্দর হবে। এটি ফ্রি এবং প্রিমিয়াম দুই ভাবেই ব্যবহার করা যায়, এছাড়া প্লে স্টোরে এর অ্যাপস‌ও পাওয়া যায়।


Photo Pea

আমার মনে হয় এটা এডোবি ইলাস্ট্রেটরের চাচাতো ভাই, এখানে এডোবি ইলাস্ট্রেটরের সব কাজ‌ই করা সম্ভব। যারা ফটোশপের কাজ জানে তাদের এডোবি ইলাস্ট্রেটর ইনস্টল করা প্রয়োজন নেই। এখানেই সব কিছু করা যায়।


Remove BG

অনেক সময় আমাদের ছবি থেকে ব্যাক রাউন্ড রিমুভ করা প্রয়োজন হয়, এই কাজটা করতে হলে অনেক সময় নিয়ে আস্তে ধীরে ব্যাকরাউন্ড রিমুভ করা লাগে, অনেকেই আছে যারা সুনিপুণ ভাবে ব্যাক রাউন্ড রিমুভ করতে পারেন না এবং এর পেছনে এতো সময় ও ব্যয় করতে চায় না। তাদের জন্য রিমুভ বিজি পারফেক্ট ওয়েবসাইট, এখানে আপনি এক ক্লিকে এক সেকেন্ডে ছবির ব্যাক রাউন্ড রিমুভ করে ফেলতে পারবেন, এছাড়াও এখানে আপনি নান্দনিক ডিজাইনের ব্যাক রাউন্ড যোগ করা সহ ব্যাক রাউন্ডে বিভিন্ন ধরনের কালার যুক্ত করবেন। চাইলে আপনার পছন্দের ব্যাক রাউন্ড ও লাগাতে পারবেন।


Kapwing

মিমস দেখে কে না মজা পায়! আমার মনে হয় সবাই মিমস পছন্দ করে, বিশেষ করে ফানি মিমসগুলো। এটা অনেক ভাবেই তৈরি করা যায়, কিপ‌উইং থেকে খুব সহজেই মিমস বানাতে পারবেন। এখানে আপনি সব জনপ্রিয় মিমসগুলোর টেমপ্লেট পাবেন, চাইলে আপনার গ্যালারি থেকে ছবি আপলোড করেও মিমস বানাতে পারবেন। এখানে শুধু ছবি দিয়ে নয় চাইলে ভিডিও মিমস ও তৈরি করা যায়। এক কথায় বলতে গেলে মিমস বানাতে যা যা লাগে তার সমস্ত কিছুই এখানে পাবেন। তো এখন থেকে আপনি‌ও হয়ে যান একজন মিমার।


Logo Maker

অনলাইন কিংবা অফলাইন যে কোন প্রতিষ্ঠানের‌ই নিজস্ব লোগো বা প্রতীক থাকে, কিন্তু সবাই তো আর গ্রাফিক্স ডিজাইনার নয় যে লোগো তৈরি করবে। লোগো তৈরির জন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে অথবা কোন লোকাল গ্রাফিক্স ডিজাইনারকে হায়ার করা লাগে, কিন্তু আপনি চাইলে এখান থেকে খুব সহজেই আপনার প্রতিষ্ঠানের ধরণ অনুযায়ী বিনামূল্যে লোগো বানিয়ে নিতে পারবেন। এজন্য আপনার কোন গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ জানা প্রয়োজন নেই।


Watermark

নিজের তৈরি করা আর্ট যেন অন্য কেউ ব্যবহার না করে এজন্য ওয়াটার মার্ক বা জলছাপ ব্যবহারের প্রয়োজন হয়। আপনি কষ্ট করে একটি ছবি আঁকলেন অথবা কোন ভিডিও বানালেন কিংবা কোন আর্টিকেল‌ই লিখলেন, এখন যদি অন্য কেউ সেটা বিনামূল্যে ব্যবহার করতে চায় তাহলে তো আপনার পরিশ্রম বৃথা যাবে। কিন্তু যদি আপনি সেটাতে ওয়াটার মার্ক ব্যবহার করেন তাহলে অন্য কেউ সেটা ব্যবহার করতে চাইবে না, আর করলেও ওয়াটার মার্ক থাকার ফলে মানুষ বুঝে যাবে যে এটা কে তৈরি করেছে। এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি ছবিতে জলছাপ যুক্ত করতে পারবেন।


Addtext

অনেক সময় ছবির উপর কিছু লেখা অথবা ক্যাপশন লাগানোর প্রয়োজন বোধ করি। আর এজন্য বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার করতে হয়, তবে আপনি চাইলে খুব সহজেই এই সাইট থেকে ছবিতে লেখা যুক্ত করতে পারবেন।


Optimiz image

কিছু ছবির সাইজ অনেক বেশি হয়, বিশেষ করে মোবাইলের ক্যামেরায় তোলা ছবিগুলো। এসব ছবি মেমোরির অনেক জায়গা দখল করে রাখে।  বিশেষ করে যারা ব্লগিং করেন অথবা এস‌ইও সম্পর্কে জানেন তারা অবশ্যই জানেন যে ব্লগপোষ্টের ছবি যতো ছোট সাইজের হবে ততো ভালো, কারণ ব্লগ পোস্টের ছবির সাইজ বেশি হলে ওয়েব পেজ লোড হতে সময় বেশি লাগে, তাই ব্লগাররা কম এমবির ছবি ব্যবহার করে থাকেন। এই ওয়েবসাইট থেকে ছবির কোয়ালিটি ঠিক রেখে ছবির সাইজ কমাতে পারবেন।


আরো পড়ুন : শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা দশটি অ্যাপস।


Image Convert

ফটো, ইমেজ বা পিকচার যাই বলুন না কেন এগুলো কিন্তু বিভিন্ন ধরনের ফাইল ফরম্যাটে থাকে, সাধারণত আমরা যেগুলো সম্পর্কে জানি সেগুলো হলো JPG, JPEG, PNG, PDF, GIF, TTIF ইত্যাদি। কাজের প্রয়োজনে একেক সময় আমাদের একেক রকম ফাইল প্রয়োজন হয়। তাই এক ফাইল থেকে আরেক ফাইলে যেমন (JPG to PNG)তে কনভার্ট করতে চাইলে এখানে করতে পারবেন।


Crop

মাঝে মাঝে ফটো থেকে অপ্রয়োজনীয় অংশ ছাঁটাই করে ফটো ছোট করতে হয়। এখান থেকে খুব সহজেই ছবি ক্রপ করতে পারবেন।


Photo Monia

ছবি এডিট করার জন্য সুন্দর একটি প্লাটফর্ম। এখানে আপনি ছবিতে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন, কালার, ফ্রেম, বিভিন্ন আকার স্টাইল সবকিছুই আছে এখানে। একবার গেলেই বুঝতে পারবেন।


আরো পড়ুন : বাংলাদেশের জনপ্রিয় ওয়েবসাইটসমূহ


Photo collage

একাধিক ছবি একত্র করে একটি ছবিতে রাখার জন্য ফটো কলেজ তৈরি করতে হয়, এই ওয়েবসাইটে আপনি নানা রকম ডিজাইনের কলেজে  ছবি যুক্ত করে তা ডাউনলোড করতে পারবেন।


Grattingsisland

এখানে আপনি সকল প্রকার কার্ড বানাতে পারবেন। এখানে সব ধরনের কার্ডের‌ই টেমপ্লেট দেওয়া আছে, আপনি শুধু কাস্টমাইজ করে ডাউনলোড করবেন। চাইলে প্রিন্ট আকারে বের ও করতে পারবেন।

 

 Autodraw

এখানে আপনি আঁকিবুঁকি করে চিত্র আঁকতে পারবেন, চাইলে তা ডাউনলোড ও করে নিতে পারবেন।


Screenshot Guru

কোন ওয়েবসাইটের স্ক্রীনশর্ট নিতে চাইলে এখান থেকে নিতে পারবেন। যে ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজের স্ক্রীনশর্ট নিতে চান সেই ওয়েব পেজ অথবা ওয়েবসাইটের লিংকটা পেষ্ট করে দিবেন তাহলেই হয়ে যাবে।


Editor Pho

অসাধারণ ওয়েবসাইট, এখানে বিভিন্ন রকম ভাবে ছবি এডিট করা যায়।


Tuxpi

এখানে আপনি ছবিতে ক্যাপশন যোগ করা, রিসাইজ করা, ক্রোপ করা, ও কালার ইত্যাদি কাজে লাগাতে পারবেন।


Webcamtoy

এটা কোন ফটো এডিটিং ওয়েবসাইট নয় বরং এটা এক ধরনের ক্যামেরা ওয়েবসাইট, এখানে আপনি বিভিন্ন রকম ইফেক্ট ব্যবহার করে ছবি তুলতে পারবেন, মোবাইলে ছবি তুলতে গেলে ছবির সাইজ যা হয় এখানে তার চেয়ে অনেক কম সাইজে ছবি তুলতে পারবেন।


Web Camera

এই ওয়েবসাইটে গেলে ভিডিও ক্যামেরা চালু হবে, আপনি এখান থেকে ভিডিও রেকর্ড করে সেভ করতে পারবেন।


Watermark remove

কোন ছবি অথবা ভিডিও থেকে ওয়াটার মার্ক রিমুভ করা প্রয়োজন হলে এই ওয়েবসাইট থেকে করা যাবে। 


যারা ফটো এডিটিং কিংবা গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করেন বা করবেন বলে ভাবছেন, তাদের জন্য এই লেখাটি উপকারে আসবে বলে আমি মনে করি। কারণ ফটো এডিটিং কিংবা গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে হলে এই বিশটি ওয়েবসাইটের কোন না কোন ওয়েবসাইট অবশ্যই প্রয়োজন হবে। 

ফটো এডিটিং এর সেরা বিশটি ওয়েবসাইট


আরো পড়ুন : ৩৫ টি অদ্ভুত ওয়েবসাইট।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন