ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে যেভাবে পুনরুদ্ধার করবেন

আজকাল আমরা সবাই প্রায় ফেসবুক ব্যবহার করি। বন্ধু বান্ধবদের সাথে যোগাযোগ রাখতে, তাদের খোঁজ খবর নিতে, কখন কোন ট্রেন্ডিং ইস্যু চলে তা জানতে, নিজের স্ট্যাটাস ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলির সাথে শেয়ার করতে এটা একটি অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম। প্রতিটি ফেসবুক ব‌্যবহারকারীর তার আইডির সাথে জড়িয়ে থাকে অনেক আবেগ, স্মৃতি, গল্প ও নিজের গোয়নীয়তা। কিন্তু কেমন লাগবে যদি প্রিয় ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হয়ে যায়! নিশ্চয় অনেক খারাপ লাগবে সেই সাথে বিশেষ কোন সমস্যাতেও পড়তে পারেন, কারণ আজকাল আমরা আমাদের প্রাইভেসিগুলো ফেসবুকের সাথে জড়িয়ে ফেলেছি। আর কেউ চায় না তার ব্যাক্তিগত কোন তথ্য অন্য কেউ জানুক। এই লেখায় আমি উল্লেখ করব ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কেন হ্যাক হয়, হ্যাকিং হলে কীভাবে বুঝবেন, কীভাবে পুনরুদ্ধার করবেন ও  আইডি নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গুলো কী কী? শুরুতে আমার সাথে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনা দিয়েই শুরু করি।

ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে যেভাবে পুনরুদ্ধার করবেন


ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১৬ সালে। সকালে মোবাইল সাইলেন্ট করে ঘুমিয়ে পড়লাম, দুপুরে ঘুম থেকে উঠে দেখি সাতটা মিসড কল। আননোন নাম্বার ছিল তাই গুরুত্ব দিলাম না, গোসল সেরে লাঞ্চ করার পর ভাবলাম একটু ফেসবুকে ঢুঁ মারি। কিন্তু ফেসবুকে লগইন করতে পারছিলাম না, পাসওয়ার্ড ভুল দেখাচ্ছিল, ফরগেটেন পাসওয়ার্ড এ প্রবেশ করলেও ই-মেইলে কোন কোড আসছিল না। ততক্ষণে যা বুঝার বুঝে গেছি, তারাতাড়ি ওই আননোন নাম্বারে কল করে বললাম, "ভাই আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করেছেন?" ফোনের ওপাশ থেকে উত্তর এলো, "হ্যাঁ করেছি" আমি ই-মেইল এবং পাসওয়ার্ড চাইলে আমার কাছে টাকা চাইলো, অবশেষে টাকার বিনিময়ে আমাকে ই-মেল ও পাসওয়ার্ড মেসেজের মাধ্যমে দিয়ে দিলো। এরপর আইডিতে লগইন করে দেখি আমার প্রোফাইলে একটি লোভনীয় অফার করে লিংক যুক্ত পোষ্ট করা হয়েছে। ততক্ষণে আমার মনে পড়লো যে রাতে একটা পোষ্ট দেখেছিলাম যেখানে লেখা ছিল, "এই লিংক থেকে ফেসবুকে লগইন করলে ১৫০ টাকা মোবাইল রিচার্জ পাবেন।" সঠিক মনে নেই কি লেখা ছিল তবে এই ধরণের কিছুই লেখা ছিল আর আমি ঐ লিংক থেকে ফেসবুকের ইমেইল ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করেছিলাম যার কারণে আমার ইমেইল পাসওয়ার্ড তারা পেয়েছিল। পরে গুগলে ঘাঁটাঘাঁটি করে জেনেছি, ওটা ছিল ফিশিং সাইট। ফিসিং সাইট হলো এমন একধরনের ওয়েবসাইট যেটা হুবহু অন্য ওয়েবসাইটের মতো করে তৈরি করা হয়, কেউ যদি আসল ওয়েবসাইট মনে করে ই-মেইল পাসওয়ার্ড দিয়ে সেখানে লগইন বা সাইন আপ করে, তাহলে তার ই-মেইল ও পাসওয়ার্ড হ্যাকাররা পেয়ে যায়। এটাই হলো ফিশিং।
উপরের ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১৬ তে প্রায় পাঁচ বছর আগে এতো দিনে অনেক কিছু শিখেছি তাই ভাবলাম আমার মতো এমনটা যেন আর কারো সাথে না ঘটে, এজন্য প্রয়োজনীয় সতর্কতা নিয়ে একটি আর্টিকেল প্রকাশ করি।

হ্যাকিং মূলত এডভান্স লেভেলের কাজ, সহজে কেউ ফেসবুক হ্যাক করতে পারবে না, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করেছে। যারা ফেসবুক ব্যবহারকারীর অজ্ঞতার কারণে কৌশলে তার অ্যাকাউন্টের অ্যাক্সেস নিয়ে নেয় তারা আসলে হ্যাকার নয়। তবে আপনাদের বুঝার সুবিধার্থে এই লেখায় আমি তাদের হ্যাকার বলেই উল্লেখ করব।

ফেসবুক আইডি হ্যাক কেন হয়?

বিভিন্ন কারণে ফেসবুক আইডি হ্যাক হতে পারে, আপনার অ্যাকাউন্ট যদি দূর্বল হয় তাহলে হ্যাকাররা খুব সহজেই আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে পারে? সাধারণত দূর্বল পাসওয়ার্ড, ফেসবুক সম্পর্কে অজ্ঞতা এবং যারা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিয়ে সচেতন নয় তাদের‌ই অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়।

ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে কীভাবে বুঝবেন?

  • ফেসবুকে লগইন করার সময় যদি পাসওয়ার্ড ভুল দেখায় তাহলে বুঝবেন যে হয়তোবা আপনার আইডি হ্যাক হয়েছে।
  • আইডিতে লগইন করার পর যদি দেখেন, আপনার আইডি থেকে এমন কিছু করা হয়েছে যা আপনি করেন নাই, যেমন : লাইক, কমেন্ট, শেয়ার, আপলোড, পোষ্ট, গ্রুপে জয়েন, প্রোফাইল ছবি/কভার ফটো পরিবর্তন ইত্যাদি তাহলে বুঝবেন যে আপনার আইডি হ্যাক হয়েছে, তবে চতুর হ্যাকাররা এসব কাজ করে না।
  • আপনার মেসেঞ্জার থেকে এমন কোন মেসেজ সেন্ড করা হয়েছে যা আপনি সেন্ড করেন নাই, এমন কোন কার্যকলাপ চোখে পড়লে বুঝতে হবে অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে। হ্যাকাররা সাধারণত ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ফ্রেন্ড লিষ্টের বন্ধুদের কাছে টাকা চেয়ে, সাহায্য চেয়ে, অথবা নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য যে কোন ধরনের মেসেজ পাঠায়।
  • প্রোফাইলের ভেতরে অথবা অ্যাবাউটে কোন তথ্য পরিবর্তন করা দেখলে মনে করবেন অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে।
  • যেকোন ফেসবুক পোষ্টের কমেন্টে লিখুন @[4:0] এটা লেখার পর যদি Mark Zuckerberg লেখা না আসে তাহলে বুঝবেন যে আপনার আইডি হ্যাক হয়েছে।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে কী করবেন?

🔰 আপনার যদি মনে হয় যে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকিং এর শিকার হয়েছে, তাহলে আপনার ফেসবুক পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন, যদি হ্যাকার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে থাকে তাহলে Forgotten password অপশন থেকে নতুন পাসওয়ার্ড তৈরি করে নিন।

🔰 ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে সেটিংস থেকে Password and Security অপশনে যাবেন এরপর একটি লেখা দেখবেন where you are logged in সেখান থেকে see more এ গেলে দেখতে পারবেন কোন কোন ডিভাইস দিয়ে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগ ইন করা হয়েছে, এরপর আপনি logout off all session এ ক্লিক করে সব ডিভাইস থেকে লগ আউট করতে পারবেন এরপর আপনার পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করে নিবেন যাতে পরে আর কেউ লগ‌ইন করতে না পারে।

🔰 Password and Security অপশনে গেলে নিচে একটি অপশন দেখতে পারবেন, যেখানে লেখা আছে, If you think your account was hacked সেখানে ঢুকে পরবর্তী নির্দেশনা অনুসরণ করবেন।

🔰 ফেসবুকসহ যে কোন ধরনের সাইবার ক্রাইমের শিকার হলে সিসিটিসির ০১৭৬৯৬৯১৫০৯ এই নাম্বারে কল করুন তাহলে আইনি সহায়তা পাবেন।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখতে করণীয়?

সঠিক তথ্য ব্যবহার : যে মোবাইল নাম্বার অথবা ই-মেইল দিয়ে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করেছেন তা সচল রাখবেন যাতে করে কোন সমস্যা হলে দ্রুত সমাধান করা যায়, এছাড়া নাম ও বয়স জাতীয় পরিচয়পত্রের সাথে সামঞ্জস্য রেখে দিবেন এতে পরবর্তী কোন সমস্যা হলে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

নিজের প্রাইভেসি গোপন রাখা : অ্যাবাউটে অনেকেই নিজের মোবাইল নাম্বার, ইমেইল, জন্ম তারিখ ইত্যাদি তথ্যাবলী পাবলিক করে রাখে এর ফলে হ্যাকারদের আইডি হ্যাক করা সহজ হয়, এই তথ্যগুলো হাইড/অনলি মি করে রাখবেন।

অজানা লিংকে প্রবেশ না করা : মেসেঞ্জারে কেউ কোন অজানা লিংকে ঢুকতে বললে অথবা লগইন করতে বললে যেখানে প্রবেশ করবেন না, এধরনের লিংকগুলো প্রকৃত লিংক নয়, সেখানে হয়তো Facebook এর পরিবর্তে facebok, facbook, faceboc, এধরনের লেখা থাকে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার : অনেকেই নিজের নাম, জন্য তারিখ, স্কুল কলেজের নাম, মোবাইল নাম্বার, সিমের শেষ ছয় সংখ্যা ইত্যাদি সহজলভ্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন যার ফলে হ্যাকাররা খুব সহজেই পাসওয়ার্ড পেয়ে যায়। এমন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন যেন সেখানে ক্যাপিটাল লেটার, স্মল লেটার, নাম্বার ও স্যাম্বল থাকে। যেমন : 4+6=Ten,it's_Addition এটা অনেক কঠিন হলেও মনে রাখা সহজ।

টু-ফ্যাক্টর অ্যাথেনটিকেশন চালু রাখা : ফেসবুক অ্যাকাউন্টে টু ফ্যাক্টর অ্যাথেনটিকেশন চালু করে রাখলে কেউ আপনার ইমেইল ও পাসওয়ার্ড জানলেও লগইন করতে পারবে না। এটি চালু করতে চাইলে ফেসবুক থেকে
>>Settings and Privecy
>>Settings
>>security and login
>>Two factor authentication এ গিয়ে এটা করে নিতে হবে।
অথবা এই ভিডিও দেখে শিখে নিতে পারেন:



ট্রাসটেড কন্টাক্ট : আপনার অ্যাকাউন্টে ৩/৫ জন ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে ট্রাসটেড কন্টাক্ট লিষ্টে রাখুন, এতে কোন সমস্যা হলে, তাদের অ্যাকাউন্ট দিয়ে রিকভার করতে পারবেন। এটা করার Settings থেকে Password and Security অপশনে গেলে Choose 3 to 5 friends to contact if you get locked out এ যাবেন, এরপর আপনার বন্ধুদের Trusted contacts এ যোগ করতে পারবেন।


আশাকরি করি উপরের তথ্যগুলো আপনাদের উপকারে আসবে। ফেসবুক একটি স্যোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম হলেও আমাদের এটা শালীন ভাবে ব্যবহার করা উচিত, কারণ এখানে সবাই আপনার লাইক, কমেন্ট, শেয়ার, পোষ্ট, আপলোড করা ছবি দেখতে পায়। আপনি যদি ফেসবুকে অশ্লীল কার্যকলাপে যুক্ত থাকেন তাহলে বাস্তব জীবনের মানুষগুলো যারা আপনার সাথে ফেসবুকে যুক্ত আছে তাদের মনে আপনার সম্পর্কে একটা বাজে ধারণা তৈরি হবে। এছাড়াও ফেসবুক অ্যাকাউন্টে নিরাপত্তা জোরদার করা প্রয়োজন। কারণ ফেসবুক হ্যাকিং এর ফলে আপনার এমন‌ও ক্ষতি হতে পারে, যা আপনি ভাবতেও পারবেন না।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন